,

নদীতে চলে ট্রাক টিলার গায়ে পুকুর

আব্দুল আহাদ
অপরিকল্পিত পাথর উত্তোলন আর পাহাড়ি ঢলের সঙ্গে ভারত থেকে নেমে আসা বালিতে ভরাট হয়ে যাচ্ছে সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়া জাফলংয়ের পিয়াইন নদী। এককালের খরস্রোতা নদীটির তলদেশ ভরাট হয়ে এখন ধু-ধু বালুচরে পরিণত হয়েছে। এতে নদীতীরবর্তী এলাকার জীববৈচিত্র্য হুমকির মুখে পড়েছে। ব্যাহত হচ্ছে জন জীবন। এদিকে টিলার বুকে পুকুর বানিয়ে অভিনবকায়দায় ধংশ করা হচ্ছে টিলা ও সমতল ভূমি। টিলা আর সমতল ভূমিতে খোঁড়া হয় গর্ত একসময় এতে জমে পানি। তা নিষ্কাশনের জন্য ব্যবহার করা হয় যন্ত্রদানব। এর পর দেশের বিভিন্ন প্রান্তে নৌকা আর ট্রাক দিয়ে নিয়ে যাওয়া হয় পাথর।
স্বাধীনতার আগে এমনকি পরেও পিয়াইন নদী নিয়ে নানা পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়। কিন্তু আজ পর্যস্ত কোন প্রকল্পই আলোর মুখ দেখেনি। পরিবেশবিদরা আশঙ্কা করছেন, নদীটি যদি এখনই সংস্কার করা না হয় তাহলে এটি বিলিন হয়ে যেতে পারে কালের গর্ভে। ফলে এখানকার প্রাকৃতিকভাবে পাওয়া পাথর উত্তোলনও বন্ধ হয়ে যাবে। হারিয়ে যাবে জাফলংয়ের সৌন্দর্য। হাজার হাজার শ্রমজীবী লোক বেকার হয়ে পড়বে। ফলে পাহাড়ি ঢলে ফসল ও জনপদ বিনষ্ট, জাফলং নদীর গতিপথ পরিবর্তনসহ ভাঙন তীব্র হওয়া, পাথর ফুরিয়ে যাওয়াসহ অদূর ভবিষ্যতে অনুন্নত এই জনপদে অর্থনৈতিক বিপর্যয় সৃষ্টির আশঙ্কা করছে সবাই।
সিলেট পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) সূত্রে জানা গেছে, সিলেট মহানগরী থেকে ৬২ কিলোমিটার উত্তর-পূর্ব দিকে গোয়াইনঘাট উপজেলায় জাফলং-এর অবস্থান। নদীটির একটি শাখা ডাউকি নাম (স্থানীয়ভাবে ‘জাফলং’ বলা হয়ে থাকে) ধারণ করে দক্ষিণ দিকে প্রবাহিত হয়ে গোয়াইনঘাটের পূর্ব জাফলং ইউনিয়নের মুখতলা এলাকায় গিয়ে সারি নদীর সাথে মিলিত হয়েছে। অপর একটি শাখা পিয়াইন নাম ধারণ করে ভারতের মেঘালয় পাহাড়ের পাদদেশ ঘেঁষে পশ্চিম দিকে প্রবাহিত হয়ে সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার ধলাই নদীর সাথে মিশেছে।
সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, ডাউকির বুকে পর্যটকদের আনাগোনা রয়েছে। তারা নৌকা নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। কিন্তু ধু ধু বালুচর বুকে নিয়ে বিমর্ষ চিত্তে যেন পড়ে আছে পিয়াইন নদী। বালুর স্তর কোথাও বেশ উঁচু, কোথাও সমাস্তরাল। রংপুর থেকে সপরিবারে জাফলংয়ে বেড়াতে আসা মাহমুদুর রহমানের সঙ্গে কথা হয় এ প্রতিবেদকের। হতাশাভরা কণ্ঠে তিনি বলেন, ‘কয়েক বছর আগেও পিয়াইন নদীর স্বচ্ছ জলধারায় ঝাঁপিয়ে পড়ে অন্যরকম এক আনন্দের ফল্গুধারা বইতো মনে। আর এখন পিয়াইন যেন শুধুই স্মৃতি!’
এ নদীর উৎপত্তি হিমালয় থেকে। এর স্রোতে লাখ লাখ টন পাথর চলে আসে পিয়াইন নদীতে। পাথরের ব্যবহার বাড়ার পর ব্যবসায়ীরা পাথরের সন্ধানে নৌ পথে জাফলং আসতে শুরু করেন। পাথর ব্যবসার প্রসার ঘটতে থাকায় গড়ে উঠে নতুন জনবসতিও। পাথর উত্তোলনের জন্য বিখ্যাত এই পিয়াইন নদীকে ঘিরে চলে কয়েক হাজার পরিবারের দিনাতিপাত। এই পিয়াইন নদী থেকেই সিংহভাগ পাথর দেশের বিভিন্ন স্থানে যায়। মহান সৃষ্টিকর্তার এক বিস্ময়কর দৃষ্টাস্ত লক্ষ্য করা যায় এখানে। সারাবছর এই নদী থেকে হাজার হাজার টন পাথর উত্তোলন করা হয়। কিস্ত এই পাথরের যেন শেষ নেই। এই পাথর উত্তোলন করে জীবন নির্বাহ করছে শত শত পরিবার। এখানে যারা প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপলব্ধি করতে আসেন তাদের মাঝে এই পাথর উত্তোলনের দৃশ্যটাও একটা উপভোগ্য বিষয়। শত শত ডিঙ্গি নৌকা নিয়ে পাথর তুলছে স্থানীয়রা। তবে নদীটির বুক চিরে যেভাবে উজান থেকে নেমে আসা বালুর চর গজে উঠছে তাতে আগামী কয়েক বছরের মধ্যে নদীটি মানচিত্র থেকে হারিয়ে যেতে পারে। নদীটি খননের উদ্যোগ বারবার নেয়া হলেও তার কার্যকারিতা দেখা যায়নি।
চল্লিশের দশকে পিয়াইন-ধলাই নদীতে জাহাজ চলাচলের বিষয়টি জনশ্রুতি আছে। আর এখন পিয়াইন নদীতে বর্ষা মওসুমে নৌকা চলাচলও দুষ্কর হয়ে পড়েছে। অপরদিকে নাব্যতা হারানো নদীতে পাথরের প্রাকৃতিক উৎসও ফুরিয়ে যাচ্ছে দিন দিন। এখন অনেকটা জনপদ ধ্বংস করে পাথর উত্তোলন করা হচ্ছে। স্থানীয়রা জানান, এভাবে চলতে থাকলে এক সময় অনুন্নত এই জনপদে অর্থনৈতিক বিপর্যয় দেখা দিবে। প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের অপ্র্বূ লীলাভূমি জাফলং সংলগ্ন এই পিয়াইন নদী খনন না হলে তা গোয়াইনঘাট ও কোম্পানীগঞ্জের জন্যে দুঃখই বয়ে আনবে। স্থানীয়রা আরও জানান, মাঝে মাঝে ভারত অধ্যুষিত ডাউকি দিয়ে আকস্মিক ঢল নামে। ফলে জাফলং চা বাগানসহ এখানকার স্থানীয় বাড়ি-ঘরে ব্যাপক ক্ষতিসাধিত হয়। পানি উন্নয়ন বোর্ড সিলেটের এক নির্বাহী প্রকৌশলী জানান, পিয়াইন নদী খনন নিয়ে অতীতে অনেকবার সার্ভে করা হয়েছে। প্রায় ১৬ কিলোমিটার দীর্ঘ এলাকা সীমাস্ত নদী হিসেবে চিহ্নিত। ফলে এ ধরনের প্রকল্প বাস্তবায়নে জেআরসির সিদ্ধাস্ত প্রয়োজন। কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান এম তৈয়বুর রহমান বলেন, ছাতকের সুরমায় যেখানে পিয়াইন-ধলাই স্রোতধারা মিশেছে, সেখান থেকে উজানে সীমাস্ত এলাকায় ঢোকার পূর্ব পর্যস্ত যে ১৫/২০ কিলোমিটার ভরাট রয়েছে তা খনন করা উচিত। তার মতে, এতে ধলাইর স্রোত দ্রুত ভাটিতে চলে যাবে। তখন উজানে পিয়াইন নদীর ওপর চাপ কমতে শুরু করবে। পূর্ব জাফলং ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান হামিদুল হক ভূঁইয়া বাবুল বলেন, পিয়াইন ভরাট হয়ে যাওয়ায় বর্ষার ঢলে তার ইউনিয়নের জাফলং চা বাগান ও ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এতে গ্রামীণ অবকাঠামোর যথেষ্ট ক্ষতি হয়। পিয়াইন নদী এলাকার বাসিন্দা হারুনুর রশিদ (৩০) এ প্রতিবেদকের কাছে বলেন, এই নদী তাদের রুটি রোজগারের একমাত্র অবলম্বন। এখান থেকে পাথর উত্তোলন করেই ৫ সদস্যের পরিবার চলে। তিনি বলেন, পিয়াইন ভরাট হয়ে গেলে আমার মত অনেকেই না খেয়ে থাকবে। এই নদীটির সংষ্কার প্রয়োজন। এ ছাড়া বর্ষায় পানি দ্রুত সরে না যাওয়ার কারণে গোয়াইনঘাটবাসী পাহাড়ি ঢলে বিপর্যয়ের সম্মুখীন হচ্ছেন। এলাকাবাসী অবিলম্বে পিয়াইন সমস্যার সমাধান দাবি করেন।
এদিকে পাথর খেকোঁদের কারণে গত ২৩ তারিখ পাথর কোয়ারীতে নিহত হন ৬ জন । ছয়টি মৃতদেহের মধ্যে ৪ টি গোপনে সরিয়ে ফেলা হয়। পরের দিন বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ ছাপা হলে নড়ে চড়ে বসে প্রশাসন। স্বজনদের আবেদনের পেক্ষিতে পুলিশ গুমকৃত চার লাশ খুজতে থাকে। অবশেষে বৃহস্পতিবার (২৬ জানুয়ারী) রাতে কোম্পানীগঞ্জ থানা পুলিশ বলে এই ৫ লাশ কবর থেকে উঠিয়ে ময়না তদন্ত করা হবে এবং এই নিহত ৫ লাশের জন্য আদালতে আবেদন করে তা ঐ মামলায় যুক্ত করা হবে। নিহতরা হলেন, নেত্রকোণা জেলা ও থানার কর্ণখলা গ্রামের মো. জৈন উদ্দিনের ছেলে মো: জহির উদ্দিন (৪৬), একই গ্রামের আব্দুর রশিদের ছেলে মো. আল হাদিস (১৮), একই জেলা ও থানার মশোয়া গ্রামের মৃত আব্দুল মফিজের ছেলে আব্দুল কাদির ( ১৮), পূর্ব ধলা থানার জাগির গ্রামের মৃত জমত আলীর ছেলে মো. খোকন মিয়া (৩৫), নেত্রকোণা থানার কান্দাপাড়া গ্রামের মৃত আমজদ আলীর ছেলে আব্দুল কুদ্দুছ (৩৮)। এই ৫ জন ঐ দিনের ঘটনায় নিহত হলেও স্থানীয় পুলিশ ও প্রসাশন বলেছিলো দুইজন মাটি চাপায় মৃতের কথা।
স্থানীয় সূত্রে জানাযায়, গত ২৭ তারিখে শাহ আরেফিন টিলায় অভিযান চালিয়ে ধ্বংস করা হয় বোমা ও সেলো মেশিন। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্র্যাট জিয়াউল সোহেলের নেতৃত্বে অভিযানকালে দুটি বোমা মেশিন ও ৮টি সেলো মেশিন পুড়িয়ে ধ্বংস করে আদালত। এসময় অবৈধ পাথর বহনকারি একজন ট্রাক্টর চালক ও এক শ্রমিককে আটক করা হয়। অভিযানের পর জিয়াউল সোহেল বলেন, এই টিলা থেকে পাথর উত্তোলনে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। তবু নিষেধাজ্ঞা অম্যান্য করে কিছু লোক পাথর উত্তোলন করছে। এখন থেকে নিয়মিত এই এলাকায় অভিযান চলবে। এর পূর্বে গত মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারী) জাফলংয়ে টাস্ক ফোর্সের অভিযানে ১১টি ক্রাশার (পাথর ভাঙ্গার যন্ত্র) মেশিন উচ্ছেদ ও পিয়াইন নদী থেকে অবৈধ ভাবে পাথর উত্তোলনের দায়ে ৪টি সেইভ মেশিন ধ্বংস ও লোকালয়ে অবৈধভাবে ক্রাশার মেশিন স্থাপান করে পাথর ভাঙ্গার দায়ে এক প্রতিষ্ঠানের মালিকের কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।
ঘুরতে আসা পর্যটকরা বলেন, কোম্পানীগঞ্জ, ভোলাগঞ্জ, জাফলং সহ গোয়্ইানঘাটের বিস্তীর্ণ এলাকয় মৃত্তিকার বুক জুড়ে এখন শুধু পাথর খেকোদের তান্ডব লিলার চিত্র। পরিবেশবিদরা বলছেন, বিস্তীর্ণ এলাকায় গভীর পুকুর খননের কারণে এই এলাকাগুলো রয়েছে ভয়াভহ ভূমি ধ্বসের আশংঙ্কায়। পরিবেশের দোহাই দিয়ে সিলেটের পাথর সাম্ররাজ্যে প্রতিনিয়তই অভিযান চালানো হয়। কিন্তু লোক দেখানো কার্যক্রম শেষে কাঁচা টাকার কাছে হেরে যায় অভিযানও। স্থানীয় রাজনৈতিক থেকে প্রশাসন এমনকি সাংবাদিকদের পকেটেও ঢুকে পাথর রাজ্যের কাঁচা টাকা। ফলে থামেনা ধ্বংস লিলা। কিছু কিছু পাথর কোয়ারী নিয়ে বিগত দিনে প্রশাসনিক জামেলা হয়েছিল এবং পাথর সা¤্ররাজ্য দখল নিয়ে কোম্পানীগঞ্জ যুবলীগ নেতাকে খুনও করা হয়েছিল। এই হত্যা মামলাটি বর্তমানে আদালতে বিচারাধিন। এতো কিছুর পরও পাথর উত্তোলন ও বোমা এবং সেলু মেশিন ব্যবহারে ছিলো আইনী নিষেধাজ্ঞা। তবুও বিস্তীর্ণ এলাকায় গভীর গর্ত ও পাহাড় টিলা কেটে পাথর উত্তোলন করে আসছে পাথর খেকো আঞ্জু মিয়া, ছোরাব আলী, বসর মিয়া, হুশিয়ার আলী, আ: আজিজ ও তার ছেলে শাবুদ্দিন, মাসুক মিয়া, বিজন সরকার, সাচ্চা মিয়া, ছয়ফুল আলম, গিয়াস উদ্দিন, নাছির মেম্বার, পেট কাটা জালাল, মোহাম্মদ আলী ও পাথর রাজ্যের রাজা জিহাদ আলী, পাথর শামিম ও শাহ আরেফিন টিলার পাথর কোয়ারী থেকে চাঁদা উত্তোলনকারী কয়েকজন চেয়ারম্যান। কারণ তারাই মূলত কোম্পানীগঞ্জের পাথর কোয়ারীগুলো নিয়ন্ত্রণ করে থাকে। তাছাড়া এসকল কোয়ারীতে কোন ধরণের আইনী জটিলতা বা হতাহতের ঘটনা ঘটলে তা ধামাচাপা দেয়ার জন্য পুলিশ, স্থানীয় উপজেলা প্রশাসন ও পরিবেশ ও বন বিভাগকে নিয়ন্ত্রণ করে ঐ সকল পাথর খেকো ও পাথর রাজ্যের রাজারা। ফলে অনায়াসে চলে টিলা, পাহাড় ও নদি থেকে বোমা মেশিন ও সেলো মেশিন দিয়ে পাথর উত্তোলন।

বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা), সিলেট শাখার সাধারণ সম্পাদক আবদুল করিম কিম বলেন, বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতির করা রিটের পরিপ্রেক্ষিতে এক রুলের ওপর চূড়ান্ত শুনানি শেষে মঙ্গলবার সিলেট সদর, কোম্পানীগঞ্জ, জৈন্তাপুর, গোয়াইনঘাট ও কানাইঘাট এই পাঁচ উপজেলায় থাকা অনুমোদিত পাথর ভাঙার মেশিনগুলো (স্টোন ক্রাশিং মেশিন) নীতিমালা অনুসারে তিন মাসের মধ্যে স্টোন ক্রাশিং জোনে স্থানান্তরিত করতে হবে । আর যাদের অনুমোদন নেই তাদের উচ্ছেদ করতে হবে। বিচারপতি সালমা মাসুদ চৌধুরী ও বিচারপতি কাজী মো. ইজারুল হক আকন্দের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় দেন।‘পিয়াইন নদী মরে যাওয়ায় পরিবেশের অপূরণীয় ক্ষতি হচ্ছে। তাছাড়া পিয়াইনের স্বচ্ছ জলরাশির স্রোত না থাকায় পর্যটন স্পট জাফলং সৌন্দর্য হারাচ্ছে।’ পরিবেশ রক্ষা ও পর্যটন শিল্পের বিকাশে পিয়াইন নদী খনন করা জরুরি বলে মস্তব্য করেন তিনি। একই মস্তব্য করেন গোয়াইনঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা  বলেন, ‘অপরিকল্পিতভাবে পাথর উত্তোলন আর ভারতের উজান থেকে নেমে আসা বালির ঢলের কারণেই পিয়াইন নদী আর টিলার আজ এ অবস্থা।’কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ইকবাল হোসেন জানান, সকল প্রশাসনকে টাকা দিয়ে ম্যানেজ করে টিলা ও নদী থেকে অবৈধভাবে পাথর উত্তোলন করে পাথর খেকোরা। এ সকল বিষয়ে জেলা প্রশাসকের নিকট অভিযোগ করলে কয়েক দিন পাথর উত্তোলন বন্ধ ছিলো। কিন্তু পরে আবার তা সেই আগের মতো পাথর উত্তোলন শুরু হয়। যা আজঅবধি চলছে। কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা নির্বহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জানান, অবৈধভাবে পাথর উত্তোলন বন্ধে সকল সময় অভিযান অব্যাহত আছে। আর উপজেলা প্রশাসনের নামে মাসে টাকা আসার কথা একদম মিথ্যা। স্থানীয় বাসিন্দা  রুবেল আহমদ বলেন, পাথর তোলার কারণে প্রায় সময় প্রাণ হানীর ঘটনা ঘটে। এতে আমাদের অনেক ঝামেলার মধ্যে পড়তে হয়। অধিক মুনাফার লোভীদের কারনে এলাকার করুণ এ অবস্থা। আইনপ্রোয়োগকারি সংস্থা যদি সঠিক ভাবে তাদের কার্যক্রম চালায় তাহলে পরিবেশ ও প্রতিবেশ সবই ঠিক ভাবে চলতো।



এ সংবাদটি 492 বার পড়া হয়েছে.
এ সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  •   
  •   
  • 64
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    64
    Shares

Leave a Reply

শিরোনাম

.......................................................................................................... ............................................................................................................. logo copy
12-4-300x214
সম্পাদক ও প্রকাশক মো. নাজমুল ইসলাম
নির্বাহী সম্পাদক : আমিনুল ইসলাম রোকন
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : আর কে চৌধুরী
সিলেট থেকে প্রকাশিত।
ফোন : ০৮২১-৭১১০৬৯,
মোবাইল : (নির্বাহী সম্পাদক-০১৭১৫-৭৫৬৭১০ )
০১৬১১-৪০৫০০১-২(বার্তা),
০১৬১১-৪০৫০০৩(বিজ্ঞাপন), ইমেইল : www.sylhetsurma2011@gmail.com
ওয়েব : www.sylhetsurma.com
শিরোনাম :
‘বঙ্গবন্ধু ছাত্র পরিষদ’ সিলেট জেলা ও মহানগর’র কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অপর্ণ দক্ষিণ সুরমা ক্রিকেট এন্ড ফুটবল একাডেমীর উদ্বোধন ও আলোচনা সভা সম্পন্ন মহান বিজয় দিবসে কুচাই ইউনিয়ন ছাত্রদলের বিজয় মিছিল অনুষ্টিত সুনামগঞ্জে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে প্রাইভেটকার খাদে, নিহত ৪ আজ মহান বিজয় দিবস বিজয় দিবসের প্রথম প্রহরে সাউথ সুরমা নিউজ২৪ডটকম পরিবারের পুষ্পস্তবক অর্পণ বিজয় দিবসের প্রথম প্রহরে দক্ষিণ সুরমা জার্নালিষ্ট ক্লাব’র মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ কদমতলীর মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতিস্তম্ভে স্বর্ণশিখা সমাজকল্যাণ সমিতির পুষ্পস্তবক অর্পণ দক্ষিণ সুরমার মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতিস্তম্ভে ট্রাক শ্রমিক আঞ্চলিক ইউনিয়নের পুষ্পস্তবক অর্পণ একজন প্রবাসীর স্বপ্নযাত্রা, লাল সবুজের গর্বে রাঙা বিজয় ব্যাজ “মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে নজরুল ইসলাম কামালের শুভেচ্ছা মহান বিজয় দিবসে হাজী গুলজারের শুভেচ্ছা সপ্তাহের সেরা কন্টেন্ট নির্মাতা  কুলাউড়া উপজেলার শিক্ষক  মোহাম্মদ আব্দুল মুমিন সিলেটের দক্ষিণ সুরমার সম্মুখ যুদ্ধ ও মুক্ত দিবস আজ : বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. রফিকুল হক মুসলমান বেঁচে থাকতে কখনো জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী মেনে নিবে না : সিলেট বিভাগীয় জমিয়ত বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন ১৬নং ওয়ার্ড এর কমিটি গঠন কদমতলীতে ফিউশন ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট’র উদ্বোধন শহীদ বুদ্ধিজীবী ও মহান বিজয় দিবসে দুর্নীতি মুক্তকরণ বাংলাদেশ ফোরামের কর্মসূচী গোলাপগঞ্জে হানাদার মুক্ত দিবসে শোভাযাত্রা ও আলোচনা সভা দক্ষিণ সুরমা উপজেলা যুবদলের শোক প্রকাশ হাজী রাশিদ আলী উচ্চ বিদ্যালয়ে রাবেয়া খাতুন চৌধুরী বৃত্তি অনুষ্ঠিত মুক্তিযোদ্ধার কন্যাকে যৌতুকের জন্য শ্বশুরবাড়ির নির্যাতন সিলেট তামাবিল অটোরিক্সা স্ট্যান্ডে চাঁদাবাজি : প্রতিরোধ, আটক ১ এমপি, মন্ত্রী হওয়ার লোভ আমার নেই : সজীব ওয়াজেদ জয় রাহুল গান্ধীকে ভারতীয় কংগ্রেসের প্রেসিডেন্ট ঘোষণা বিচারকদের আচরণ বিধি প্রকাশ জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ সার্ভিসের উদ্বোধন আজ ভার্থখলা স্বর্ণালী সংঘের নব-গঠিত কমিটির নেতৃবৃন্দকে খোজারখলা আদর্শ সমাজকল্যাণ সংঘের শুভেচ্ছা অভিনন্দন… আবারো শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি পদে প্রার্থী হচ্ছেন লোহিত বিএনপির নেতার ইন্ধনে ডাকা ধর্মঘট প্রত্যাহার শেখ হাসিনা সরকার চাল ও নগদ অর্থ বিতরণ ৯ মাস চালু রাখায় জনগণের দুঃখ-দুর্দশা লাঘব হয়েছে : মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী এমপি সাংবাদিক পরিবারের বিভিন্ন জনের মৃত্যুতে বামাসাক’র শোক জেলা সেচ্ছাসেবকলীগ’র পক্ষ থেকে বঙ্গবন্ধু ছাত্র পরিষদ জেলা কমিটির নেতৃবৃন্দকে অভিনন্দন ৬ মাস পর সুতারকান্দি স্থলবন্দর দিয়ে কয়লা আমদানি শুরু  মৌলভীবাজারে অভ্যন্তরীণ কোন্দলে ছাত্রলীগের দুই কর্মীকে কুপিয়ে হত্যা জগন্নাথপুরে পানিতে ডুবে স্কুল ছাত্রের মৃত্যু সিলেটে র‌্যাবের অভিযান : ফিজাসহ ৭ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা শাবি শাখা ছাত্রলীগ প্রকাশ্যে বিভক্তি বিজয় দিবসের গুরুত্ব তরুণ প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে হবে : সাংবাদিক বাবর হোসেন বিশ্বনাথে প্রবাসীর তালাকপ্রাপ্তা স্ত্রী-সন্তানদের পুজি করে সম্পত্তি দখল করে রেখেছে একটি চক্র জনগণের কাছে দেওয়া প্রতিশ্রুতি পূরণ করতে আমি অঙ্গিকারবদ্ধ : মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী এমপি ফটো সাংবাদিক এহিয়াকে সংবর্ধনা প্রদান ছাত্রদল নেতা সাইদুল হাসান লিটনকে সংবর্ধনা প্রদান গ্রাহক প্রতি ১৫টির বেশি সিম নেওয়া যাবে না দুই মামলায় খালেদার জামিন কোচিং বাণিজ্য বন্ধে ৯৭ শিক্ষকের বিরুদ্ধে দুদকের ব্যবস্থা গ্রহণ গণতন্ত্রের মানসপুত্র সোহরাওয়ার্দীর ৫৪তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ কাম্বোডিয়ার রাজার সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ মারা গেলেন বলিউড কিংবদন্তি শশী কাপুর