,





আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় র‌্যাফেল ড্র’র নামে চলছে অবৈধ লটারি জুয়া খেলা

সিলেট সুরমা ডেস্ক :  সিলেট নগরীর শাহী ঈদগাস্থ শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামে সিলেট মেট্রোপলিটন চেম্বারের উদ্যোগে মাসব্যাপী ৫ম আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় প্রতিদিন র‌্যাফেল ড্র’র লটারির নামে জুয়া খেলা চলেছ। লটারির টিকিট মেলার প্রবেশ গেইটে বিক্রি করা হচ্ছে বলে জানিয়ে মহানগরের প্রতিটি এলাকায় মাইকিংও চলছে। পুরস্কারের লোভে প্রতিদিন টিকিট কিনছে বিপুলসংখ্যক মানুষ। আর এই লটারির ফাঁদে পড়ে আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছেন অনেকেই। অভিযোগ আছে এই জুয়ায় পুরস্কার পেয়েও লটারি ক্রেতাদের মেলা কর্তৃপক্ষকে টাকা দিয়ে তাদের পুরস্কার আনতে বাধ্য হচ্ছেন।

 

 

বিষয়টি অবগত হয়েও স্থানীয় প্রশাসন এই জুয়া বন্ধে কোনো প্রদক্ষেপ নিচ্ছেন না বলে অভিযোগ উঠেছে। গত ফেব্রুয়ারী মাসে সুনামগঞ্জে শিল্প ও পণ্য মেলায় এরকম র‌্যাফেল ড্র’র এর নামে জুয়া খেলা চলছে খবর পেয়ে সুনামগঞ্জের ডিসি ও স্থানীয় প্রশাসন তা বন্ধ করে দেয়। গত দু বছর আগে ২০১৭ সালে এমন জুয়া খেলা বন্ধ করেছিলো সিলেট প্রশাসন। কিন্তু এবার তা ব্যতিক্রম! সিলেট প্রশাসনের নাকের ডগায় প্রতিদিন র‌্যাফেল ড্র’র অবৈধ লটারির নামে জুয়া খেলা চলছে। প্রশাসনও এ বিষয়টি অবগত হয়েও নীরব ভূমিকা পালন করছে। অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় প্রশাসনকে ম্যানেজ করে এই জুয়া খেলা চলছে।

 

 

বাণিজ্য মন্ত্রনালয়ের অনুমতি পত্রের কোনো শর্তাবলিতে মেলায় লটারি বা র‌্যাফেল ড্র’র কথা উল্লেখ নেই। তবে কিভাবে মেলার আয়োজকরা এই লটারি পরিচালনা করছেন এমন প্রশ্নের জবাবে মেলার কর্তৃপক্ষ জানান- মেলায় প্রতিদিনের র‌্যাফেল ড্র’র করার জন্য স্থানীয় প্রশাসনের মৌখিক অনুমতি দিয়েছে। আর এই জুয়ায় মানুষ অংশ গ্রহন করার জন্য সিলেট ক্যাবল সিস্টেম টাকার বিনিময়ে সরাসরি সম্প্রচার করছে।

 

 

এদিকে প্রতিদিন র‌্যাফেল ড্র’র লটারির নামে জুয়া খেলা বন্ধের দাবিতে স্থানীয় বাসিন্দারা সিলেট জেলা প্রশাসক ও পুলিশ কমিশনারে কাছে লিখিত অভিযোগ করেও কোনো সাড়া পাননি। এছাড়া উচ্চ শব্দে মাইক বাজিয়ে প্রতিদিন গানবাজনা করায় স্থানীয় শিক্ষার্থীদের পড়ালেখায় সমস্যা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন কয়েকজন অভিভাবক।

 

 

জানা গেছে- সিলেট মেট্রোপলিটন চেম্বারের উদ্যোগে মাসব্যাপী বাণিজ্য মেলার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হয় গত ৯ মার্চ শনিবার। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মেলা কর্তৃপক্ষ জানিয়ে ছিলেন- মেলায় থাকবে দেশ-বিদেশের ৩৫ টি প্যাভিলিয়ন ও ১২০ টি স্টল। আর মেলাটি আন্তর্জাতিকভাবেই পরিচালিত হবে। কিন্তু এখন মেলার পাশাপাশি প্রতিদিন লটারির ড্র অনুষ্ঠিত হচ্ছে। মোটরসাইকেল, রঙিন টেলিভিশন, মোবাইল ফোন, সোনার গয়নাসহ একাধিক পুরস্কার দেওয়া হচ্ছে। মেলার প্রবেশ টিকিটের উপর র‌্যাফেল ড্র’র নাম দিয়ে লটারির কার্যক্রম চলছে। প্রতিটি টিকিটের দাম ২০ টাকা।

 

 

মেলায় মোটরসাইকেল বিজয়ী নিলু জানিয়েছেন- তিনি লটারি কিনে একটি মোটরসাকেল পেয়েছিলেন। পরে তাকে সেই মোটরসাইকেল আনতে মেলা কর্তৃপক্ষকে ৫ হাজার টাকা দিয়ে আনতে হয়েছে। তিনি জানান- মেলা কর্তৃপক্ষ তাকে বলেছে এটা সরকারের ভ্যাট নিয়েছেন তারা।

 

 

নাম না প্রকাশ করার শর্তে স্থানীয় এক বাসিন্দা বলেন, অতীতে এই মাঠে মেলা হয়েছে কিন্তু এরকম লটারি খেলা হয়নি। র‌্যাফেল ড্র’র হয়েছে কিন্তু ১৫দিন বা মাস শেষে। সিলেট প্রশাসনও এ বিষয়টি অবগত হয়েও নীরব ভূমিকা পালন করছে। স্থানীয় প্রশাসনকে ম্যানেজ করে এই জুয়া খেলা চলছে।

 

 

বাণিজ্য মন্ত্রনালয়ের অনুমতি পত্রের কোনো শর্তাবলিতে মেলায় লটারি বা র‌্যাফেল ড্র’র কথা উল্লেখ নেই স্বীকার করে সিলেট মেট্রোপলিটন চেম্বারের সদস্য ও মেলার প্রধান সমন্বয়ক এম এ মঈন খান বাবলু বলেন- মেলায় প্রতিদিনের র‌্যাফেল ড্র’র করার স্থানীয় প্রশাসনের মৌখিক অনুমতি আছে।

  •  
  •  

Leave a Reply

সম্পাদক ও প্রকাশক মো. নাজমুল ইসলাম
নির্বাহী সম্পাদক : আমিনুল ইসলাম রোকন
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : আর কে চৌধুরী
সিলেট থেকে প্রকাশিত।
ফোন : ০৮২১-৭১১০৬৯,
মোবাইল : (নির্বাহী সম্পাদক-০১৭১৫-৭৫৬৭১০ )
০১৬১১-৪০৫০০১-২(বার্তা),
০১৬১১-৪০৫০০৩(বিজ্ঞাপন), ইমেইল : www.sylhetsurma2011@gmail.com
ওয়েব : www.sylhetsurma.com