তরুণীকে ধর্ষণের পর হত্যা : ছাত্রলীগের চার নেতা বহিষ্কার

প্রকাশিত: ৯:১১ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৩, ২০১৭

সিলেট সুরমা ডেস্ক : বরগুনার পাথরঘাটায় তরুণীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ ও হত্যায় জড়িত অভিযোগে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে গ্রেপ্তার চার ছাত্রলীগ নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। বরগুনা জেলা ছাত্রলীগের সুপারিশে আজ সোমবার সকালে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ তাদেরকে বহিষ্কার করে বলে কেন্দ্রীয় কমিটির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

বহিষ্কৃত ছাত্রলীগ নেতারা হলেন পাথরঘাটা কলেজ শাখার সভাপতি রুহি আনান দানিয়েল (২২), সাধারণ সম্পাক,সাদ্দাম হোসেন ছোট্ট(২১), সাংগঠনিক সম্পাদক মো. মাহিদুল ইসলাম রায়হান (১৯) এবং উপজেলা ছাত্রলীগের সহসম্পাদক মোহাম্মদ মাহমুদ (১৮)।

বরগুনা জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মো. জুবায়ের আদনান অনিক সাংবাদিকদের জানান, গ্রেপ্তারের পর ওই চার নেতাকে নিয়ে গত কয়েকদিন ধরে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হলে বিষয়টি নজরে আসে জেলা ছাত্রলীগের। পরে গতকাল রবিবার রাতেই তাদেরকে দল থেকে বহিষ্কারের সুপারিশ করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের কাছে একটি চিঠি পাঠানো হয়।

এ বিষয়ে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির প্রথম যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. আসাদুজ্জামান নাদিম বিষয়টির সত্যতা স্বীকার করে বলেন, “কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ তাদেরকে দল থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করেছে।

উল্লেখ্য, গত ১০ আগস্ট পাথরঘাটা কলেজের নিকট একটি পুকুর থেকে হাত-পা বাঁধা অজ্ঞাতপরিচয় এক তরুণীর লাশ উদ্ধার করা হয়। তাকে প্রথমে সংঘবদ্ধভাবে ধর্ষণ করে হত্যা করা হয়েছে বলে পুলিশ অনুমান করছে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে রুহি আনান দানিয়েল ও মো. সাদ্দাম হোসেন ছোট্টকে রবিবার, মো. মাহিদুল ইসলাম রায়হান ও মোহাম্মদ মাহমুদকে শনিবার গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার পাথরঘাটা কলেজের নৈশপ্রহরী মো. জাহাঙ্গীর হোসেনকে গভীর রাতে কলেজ প্রাঙ্গণ থেকে গ্রেপ্তার করে তার জবানবন্দি গ্রহণ করে। তার জবানবন্দির সূত্র ধরে পুলিশ ছাত্রলীগের চার নেতাকে গ্রেপ্তার করে পাথরঘাটা উপজেলা আদালতের মাধ্যমে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি গ্রহণ করে।

পাথরঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এস এম জিয়াউল হক বলেন, “মামলার স্বার্থে সবকিছু বলা যাচ্ছে না। তবে তদন্তের অগ্রগতি সন্তোষজনক। “

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ