এতো তেল দিয়েন না, প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত: 9:43 PM, October 23, 2016

সিলেট সুরমা ডেস্ক
চলছে আওয়ামী লীগের ২ দিন ব্যাপী সম্মেলন। ২০ তম সম্মেলনের কাউন্সিলরদের বক্তব্য রাখার সময় ৩ মিনিট বেঁধে দেয়া থাকলেও দলীয় সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রশংসা ও গুণগান গাইতেই অধিকাংশ সময় ব্যয় করেন প্রায় সবাই। গতকাল রোববার সকালে আওয়ামী লীগের ২০তম সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনের প্রথম অধিবেশনে দলীয় সভাপতির উপস্থিতিতে সারাদেশ থেকে আসা কাউন্সিলররা বক্তব্য রাখেন। রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে সকাল সাড়ে ৯টায়  শুরু হওয়া কাউন্সিল অধিবেশনে এ সময় বিভিন্ন জেলার সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকরা বক্তব্য দেন। এর মধ্যে লক্ষীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নূর উদ্দিন চৌধুরীর মুখে শেখ হাসিনার প্রশংসা একটু বেশিই শোনা যায়। এতো প্রশংসা শুনে নেত্রী বাধ্য হয়েই তাকে বলেন ‘এতো তেল দিয়েন না’। লক্ষ্মীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নূর উদ্দিন চৌধুরী তার বক্তব্যের শুরুতে বলেন, ‘নেত্রী আপনার বয়স ৭০ বছর চলছে। কিন্তু আপনার কাজকর্মে, সাহস, শক্তি ও মনোবলে মনে হয় আপনার বয়স ৩০ বছর। আপনাকেই দলের নেতৃত্বে থাকতে হবে।’ তখনই প্রধানমন্ত্রী হাসতে হাসতে বলেন, ‘এতো তেল দিয়েন না।’ এ সময় প্রায় সব কাউন্সিলরররা শেখ হাসিনাকে আজীবন সভাপতির পদে থাকার জোর দাবি জানান। তাছাড়া বঙ্গবন্ধুর দৌহিত্র ও শেখ হাসিনার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়কে গুরুত্বপূর্ণ পদে রাখারও জোর দাবি জানান তারা। পঞ্চগড় জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার শাহাদাৎ সম্রাট তার বক্তব্যে বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর কন্যা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, আপনার প্রতি আমাদের পূর্ণ আস্থা রয়েছে। আমরা চাই আপনি এমন একটি কমিটি উপহার দেবেন যাতে আমাদের আস্থা বজায় থাকে। আমরা কোনও মীরজাফরকে দলে দেখতে চাই না।’ ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বাকি বিল্লাহ বলেন,  ‘ প্রধানমন্ত্রী আপনিও আমাদের ছেড়ে যাবেন না।’ জবাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমি যাবো না তো, যাবো কোথায়?’ মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নেছার আহমেদ বলেন, ‘নেত্রী আপনাকে বলছি, সবার কাছে গ্রহণযোগ্য নেতৃত্ব উপহার দেবেন। গ্রহণযোগ্য নেতৃত্বের মাধ্যমে দল এগিয়ে গেলে সেটাই ভালো হবে।’ রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আজাদ বলেন,  ‘যতোদিন বাঁচবেন, ততোদিন আপনাকে দলের সভাপতি হিসেবে দেখতে চাই।’ ঠাকুরগাঁও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ কোরেশী বলেন, ‘আপনার বিশ্বস্ত যার কাছে দল নিরাপদ থাকবে তার হাতেই নেতৃত্ব তুলে দেবেন বলে আমরা আশা করছি।’ টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফজলুর রহমান ফারুক বলেন, ‘জননেত্রী শেখ হাসিনা আপনার আলোতেই আমরা আলোকিত। আমাদের বিজ্ঞ, প্রাজ্ঞ ও মহান অনেকেই আছেন, সবার আগে শেখ হাসিনা, তারপরেই তাদের অবস্থান। আওয়ামী লীগ আপনার সম্পদ। এই দলটাকে যতোদিন পারেন আপনাকেই টেনে নিয়ে যেতে হবে।’ মাদারীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাজল কৃষ্ণ বলেন, ‘শেখ হাসিনা আপনি যতোদিন বেঁচে থাকবেন, ততোদিন আপনাকেই আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে দেখতে চাই।’
উল্লেখ্য, আজ কাউন্সিলের দ্বিতীয় অধিবেশনে দলের গুরুত্বপূর্ণ পদগুলোতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ