কুলাউড়ায় সাদা পোশাকে তিনজনকে অপহরণ

প্রকাশিত: 11:23 PM, December 10, 2016

মৌলভীবাজার সংবাদদাততা
মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী পরিচয়ে তিন ব্যক্তিকে তুলে নেওয়ার অভিযোগ ওঠেছে। সাদা পোষাকে কালো মাইক্রোবাসে করে তাদের তুলে নেওয়া হয় বলে জানিয়েছেন ‘অপহৃতদের’ পরিবারের সদস্যরা। কুলাউড়ার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শামসুদ্দোহাও শনিবার এমন অভিযোগ পেয়েছন বলে জানিয়েছেন। অপহৃতদের স্বজনদের বরাত দিয়ে ওসি জানান, গত ৮ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার সকালের দিকে এ ঘটনা ঘটে। তিনদিন অতিবাহিত হলেও এখনও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী অপহৃতর খোঁজ পায়নি। তাদের উদ্ধারে পুলিশ কাজ করছে।পূর্বশত্রুতার জের ধরে দুর্বৃত্তরা ওই তিন ব্যক্তিকে অপহরণ করে থাকতে পারে বলেও জানান ওসি।
অপহৃত ব্যক্তিরা হলেন- কুলাউড়ার টিলাগাঁও ইউনিয়নের আমানীপুর গ্রামের বাসিন্দা আলখাছ মিয়া (৩৫), আলখাছের ছোটভাই ফয়ছল আহমদ (১৭) ও তাদের আত্মীয় ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার বাসিন্দা আনছার আলী (৩০)।
আলখাছের বড় ভাই আফতাব মিয়া বলেন, ‘বৃহস্পতিবার সকালে কালো রঙের একটি মাইক্রোবাসে সাদা প্যান্ট ও টি-শার্ট পরা ১০-১২ জন অস্ত্রধারী বাড়িতে আসেন। তারা নিজেদের আইনশৃঙ্থলাবাহিনীর সদস্য পরিচয় দিয়ে আনছারকে গ্রেফতারের জন্য এসেছেন বলে জানায়। ওই সশস্ত্র লোকেরা জানায়, আনছার একটি মামলার আসামি। এসময় আলখাছ ও ফয়ছলকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নেওয়ার কথা বলে তিনজনকেই গাড়িতে তুলে নিয়ে যায় তারা।’
আফতাব আরও বলেন, ‘আনছার কিছুদিন আগে তাদের বাড়িতে বেড়াতে এসেছিলেন। ময়মনসিংহের বাসিন্দা আনছারের বিরুদ্ধে কোনও মামলা আছে কি না, তা জানা নেই, তিনি ব্যবসা করেন। আর আলখাছের মুদি দোকান রয়েছে। ফয়ছল পেশায় একজন কাঠমিস্ত্রি।’ তাদের সঙ্গে কারও বিরোধ নেই বলেও দাবি করেন আফতাব।
কুলাউড়া থানা ও শ্রীমঙ্গলে র‌্যাব- ৯ ক্যাম্পে খোঁজ নিয়ে তিনজনের কারও সন্ধান মেলেনি। আলখাছ ও ফয়ছলের মুঠোফোনে অনেকবার ফোন করা হলেও কেউ ধরেনি জানান তিনি। টিলাগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুল মালিক বলেন, ‘আমি ঘটনাটি শুনে অপহৃত ব্যক্তিদের অভিভাবকদের থানায় জিডি করার পরামর্শ দিয়েছি।’
র‌্যাব- ৯ শ্রীমঙ্গল ক্যাম্পের অধিনায়ক সহকারী পুলিশ সুপার মাঈন উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘পূর্বশত্রুতার জের ধরে দুর্বৃত্তরা তিন ব্যক্তিকে অপহরণ করে থাকতে পারে।’

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ