• ৩রা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ১৯শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ , ২২শে শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

কাজলশাহে অপ্রীতিকর ঘটনায় দুটি তদন্ত কমিটি গঠন : আটক ১

sylhetsurma.com
প্রকাশিত সেপ্টেম্বর ৩, ২০১৬

স্টাফ রিপোর্টার ::: সিলেট নগরীর কাজলশাহ যুগলটিলায় ইসকন ভক্তদের সাথে মুসল্লিদের অপ্রীতিকর ঘটনা তদন্তে প্রশাসন ও পুলিশের পক্ষ থেকে পৃথক দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। প্রশাসনিক তদন্ত কমিটির প্রধান হিসাবে দায়িত্ব পালন করবেন সিলেটের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট এস এম ফেরদৌস এবং পুলিশের গঠিত তদন্ত কমিটির প্রধান করা হয়েছে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত মাঈনুল হাসানকে। দুটি কমিটিকে এক সপ্তাহের মধ্যে রিপোর্ট দিতে বলা হয়েছে। এদিকে, ইসকন মন্দিরে হামলার সাথে সম্পৃক্ততার অভিযোগে একজনকে আটক করেছে।
গত শুক্রবার বিকেলে সিলেট জেলা স্টেডিয়াম ভবনের একটি কক্ষে এলাকাবাসীর সাথে বৈঠক করেন সিলেট বিভাগীয় প্রশাসন, সিলেট মহানগর পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ। বৈঠকে দুটি তদন্ত কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত হয় বলে সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র জানায়।
ওই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন, সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার মোঃ জামাল উদ্দিন, সিলেট জেলা প্রশাসক জয়নাল আবেদীন, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ আসাদ, সিলেট মহানগর পুলিশ কমিশনার এস এম কামরুল ইসলাম, সিলেট সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আশফাক আহমদ, কাউন্সিলর রকিবুল ইসলাম ঝলক, কাউন্সিলর এস এম আবজাদ হোসাইন সাবেক কাউন্সিলর মুক্তিযোদ্ধার আবদুল খালিকসহ জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন ও সমাজের গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।
এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, র‌্যাব-৯, স্পেশাল কোম্পানী সিলেট ক্যাম্পের একটি আভিযানিক দল শুক্রবার এএসপি মোহাম্মদ জিয়াউল হকের নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে ইসকন্দর মন্দিরে হামলার ঘটনায় জড়িত সন্দেহে একজনকে আটক করেছে। আটক আসামীর নাম মোহাম্মদ জুবায়ের (৪০)। সে কাজলশাহ ২৮ নম্বর বাসার মৃত আহমদ আলীর পুত্র। আটক আসামীকে কোতয়ালী থানায় সোপর্দ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে র‌্যাব।
উল্লেখ্য, গত শুক্রবার জুম্মার নামাজের সময় কাজলশাহ মধুশহীদ জামে মসজিদের বিপরীতে ইসকন মন্দিরে ‘ভক্তবেদান্ত ন্যাশনাল স্টুডেন্টস কম্পিটিশন’ এর বিভাগীয় পর্যায়ের প্রতিযোগিতা চলছিল। মন্দিরের ভেতর থেকে তখন গান-বাজনা ও বাদ্যযন্ত্রের আওয়াজের কারনে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন মুসল্লিরা। জুম্মার নামাজের পর মসজিদের মুসল্লিরা সীমানা প্রাচীরের বাইরে থেকে ইসকন মন্দির লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ শুরু করেন। এ নিয়ে দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হংয়। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে গুলি ছুঁড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এতে সিলেট সিটি করপোরেশনের সাবেক নারী কাউন্সিলর জেবুন্নাহার শিরিনসহ ২০ জন আহত হন।