• ৩রা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ১৯শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ , ২২শে শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

শেখ হাসিনাই সবচেয়ে জনপ্রিয়, আ’লীগের উপর এখনো জনসমর্থন বেশি

sylhetsurma.com
প্রকাশিত জুন ১১, ২০১৭

সিলেট সুরমা ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাই সবচেয়ে জনপ্রিয়। একইভাবে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের ওপর এখনো দেশের অধিকাংশ মানুষের সমর্থন রয়েছে বলে তথ্য উঠে এসেছে দ্য ইনডিপেন্ডেন্ট ও রিসার্চ ডেভেলপমেন্ট সেন্টারের (আরডিসি) এক জরিপে। ২০১৭ সালের মার্চ মাসে ফোনের মাধ্যমে ১ হাজার ৫ জন প্রাপ্তবয়স্ক নাগরিকের সাক্ষাতকারের মাধ্যমে এই জরিপ পরিচালনা করা হয়। জরিপ প্রতিবেদনে বলা হয়, দেশের অধিকাংশ মানুষ তাদের জীবনযাত্রার মান নিয়ে সন্তুষ্ট এবং সার্বিক উন্নয়নের বিষয়ে আশাবাদী। জরিপে অংশ নেয়া ৬৮.৬ ভাগ উত্তরদাতা মনে করেন দেশে সঠিক পথে এগিয়ে যাচ্ছে। সঠিক পথে এগোচ্ছে না বলে জানান ১৩.৭ ভাগ মানুষ।
প্রতিবেদনে জানানো হয়, বিএনপির চেয়ে আওয়ামী লীগের প্রতি জনসমর্থন বেশি। সেই সঙ্গে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার চেয়ে জনপ্রিয়তায় অনেক এগিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দেশের রাজনৈতিক দলগুলোর জনপ্রিয়তা যাচাইয়ের প্রশ্নে ৫৬.৯ ভাগ মানুষ আওয়ামী লীগ সম্পর্কে ‘ভালো’মত দেয়। বিএনপির পক্ষে ভালোমত প্রকাশ করে ১৮.৫ ভাগ উত্তরদাতা। অন্যদিকে জাতীয় পার্টি সম্পর্কে ‘ভালো’মত প্রকাশ করেছে ১৫ ভাগ। আওয়ামী লীগের প্রতি নেতিবাচক মত প্রকাশ করে ২.৬ ভাগ উত্তরদাতা। বিএনপির প্রতি এই হার ৪৪.১ শতাংশ। আর ২৫.৪ ভাগ উত্তরদাতা জাতীয় পার্টির প্রতি নেতিবাচক মত দেয়।
এই মুহূর্তে নির্বাচন হলে উত্তরদাতাদের ৩৬.১ ভাগ আওয়ামী লীগকে ভোট দেবেন বলে জানান। অন্যদিকে বিএনপিকে ভোট দেবেন ৩.৫ ভাগ। এ ছাড়া জাতীয় পার্টির পক্ষে ১.২ এবং জামায়াতে ইসলামীকে ভোট দেবেন ০.৪ ভাগ উত্তরদাতা। তবে ৪৯.৭ ভাগ মানুষ এখনো সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি, তারা কাকে ভোট দেবে। ৭.৫ ভাগ মানুষ কাকে ভোট দেবেন তা জানাবে না বলে উত্তর দেন। অন্যদিকে ১ ভাগ মানুষ জানায়, তারা ভোট দেবেন না।
জীবনমানের প্রশ্নে ৬৪ ভাগ মানুষ মনে করেন তাদের জীবনমানের উন্নয়ন ঘটেছে। ২৪.৫ ভাগ মানুষ তাদের জীবনমানের উন্নয়ন ঘটেনি বলে জানায়। জীবনমান অপরিবর্তিত রয়েছে বলে জানান ১১.৪ ভাগ উত্তরদাতা। পারিবারিক আর্থিক উন্নয়ন ঘটেছে বলে জানান ৫৪.৫ ভাগ উত্তরদাতা। অন্যদিকে আয় বাড়েনি বলে জানান ২৫.৫ ভাগ মানুষ। আগের কয়েক বছরের তুলনায় পারিবারিক আয় একই আছে বলে মতামত আসে ১৯.৯ ভাগ। বর্তমানে নিজ পরিবারের ক্ষেত্রে শারীরিক বা সার্বিক নিরাপত্তা বেড়েছে বলে মতামত দিয়েছে অধিকাংশ উত্তরদাতা। ৬৩ ভাগ মনে করেন তাদের পরিবারের সার্বিক নিরাপত্তা বেড়েছে। ১৬.৯ ভাগ উত্তরদাতা মনে করেন তাদের নিরাপত্তা কমেছে।
এদিকে তরুণদের কাছে বিএনপির তুলনায় বেশি জনপ্রিয় আওয়ামী লীগ। জরিপে অংশ নেয়া ১০০৫ জনের মধ্যে ১৮ থেকে ২৯ বছর বয়সীদের ৫৫.৪ ভাগ তরুণ আওয়ামী লীগের পক্ষে তাদের মতামত প্রদান করেছেন। বিএনপির পক্ষে ভালো মত প্রকাশ করেছেন ২০.৮ ভাগ। অন্যদিকে এই তরুণদের ২.৫ ভাগ আওয়ামী লীগ সম্পর্কে নেতিবাচক মত প্রকাশ করছে, বিএনপির ক্ষেত্রে নেতিবাচক মত প্রকাশ করেছে ১৩.৮ ভাগ। কাকে ভোট দেবেন জানতে চাইলে এই তরুণদের প্রায় ৩৬ ভাগ আওয়ামী লীগকে ভোট দেবে বলে জানান। অন্যদিকে বিএনপিকে ভোট দেবে বলে জানান মাত্র ৩.৪ ভাগ তরুণ।
আওয়ামী লীগ ও বিএনপির ক্ষেত্রে সবচাইতে বড় পার্থক্য গড়ে দিয়েছে দলীয় প্রধানদের জনপ্রিয়তা। ইন্ডিপেন্ডেন্টের জরিপ অনুসারে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার পক্ষে ‘ভাল’ মত প্রদান করেছেন ৭২.৩ ভাগ উত্তরদাতা। অন্যদিকে ২৬.৬ ভাগা উত্তরদাতা ‘ভাল’মত প্রকাশ করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার পক্ষে। পক্ষান্তরে শেখ হাসিনা সম্পর্কে নেতিবাচক মনোভাব পোষণ করেছেন ২ ভাগ মানুষ। অন্যদিকে ১৩.৬ ভাগ মানুষ বেগম খালেদা জিয়া সম্পর্কে নেতিবাচক মন্তব্য প্রদান করেন। তরুণদের ৭১ ভাগের কাছে জনপ্রিয় শেখ হাসিনার, আর খালেদা জিয়া ২৩ ভাগের কাছে জনপ্রিয়।