Warning: trim() expects parameter 1 to be string, array given in /home/sylhetsu/public_html/wp-includes/meta.php on line 1

Warning: trim() expects parameter 1 to be string, array given in /home/sylhetsu/public_html/wp-includes/pomo/streams.php on line 1

Warning: trim() expects parameter 1 to be string, array given in /home/sylhetsu/public_html/wp-includes/cache.php on line 1

Warning: trim() expects parameter 1 to be string, array given in /home/sylhetsu/public_html/wp-includes/user.php on line 1

Warning: trim() expects parameter 1 to be string, array given in /home/sylhetsu/public_html/wp-includes/widgets.php on line 1

Warning: trim() expects parameter 1 to be string, array given in /home/sylhetsu/public_html/wp-includes/rest-api/endpoints/class-wp-rest-menus-controller.php on line 1
সরকারী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রোগী থেকে অতিরিক্ত টাকা নেওয়ার অভিযোগ  – Daily Sylhet Surma
  • ৬ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ , ২৩শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ , ১৫ই রজব, ১৪৪৪ হিজরি

সরকারী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রোগী থেকে অতিরিক্ত টাকা নেওয়ার অভিযোগ 

প্রকাশিত জুলাই ৯, ২০১৮
সরকারী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রোগী থেকে অতিরিক্ত টাকা নেওয়ার অভিযোগ 

সরকারী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রোগী থেকে অতিরিক্ত টাকা নেওয়ার অভিযোগ সিলেট সুরমা ডেস্ক : নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগে দায়ীত্বরত (এমটি ল্যাব) বেনু ভুষন দাশের বিরুদ্ধে টাকা নিয়ে চিকিৎসা সেবা প্রদান করার অভিযোগ উঠেছে।

সোমবার (৮ জুলাই) সকালে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা বরাবরে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন চিকিৎসা সেবা নিতে আসা শাহান আহমেদ রিপন নামের লোক।

সেই সাথে হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসক, জেলা সিভিল সার্জনসহ স্বাস্থ্য বিভাগের বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগের অনুলিপি প্রেরণ করা হয়েছে।

অভিযোগে বলা হয়, গত শনিবার বিকেলে কুর্শি ইউনিয়নের এনাতাবাদ গ্রামের সেলিম আহমেদ ও তার স্ত্রী ফৌজিয়া আক্তার রিতাকে নিয়ে নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা করাতে নিয়ে যান তাদের আত্মীয় শাহান আহমেদ রিপন নামের এক লোক। তাদেরকে দীর্ঘক্ষন দার করিয়ে রেখে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত বেনু ভুষন দাশ (এমটি ল্যাব) চিকিৎসা প্রদানের আগেই তাদের কাছে টাকা দাবী করেন।

রোগীদের সাথে টাকা নেই বলার পর বেনু ভুষন দাশ চিকিৎসা দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন। পরে ৫ শত টাকার বিনিময়ে তিনি তাদের চিকিৎসা দিয়েছেন।

এ ছাড়াও দীর্ঘদিন ধরেই চিকিৎসা সেবা নিতে আসা সাধারণ লোকদের কাছ থেকে টাকা আদায় ও স্বজনপ্রীতিসহ বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

এনিয়ে চরম হতাশায় ভূগছেন চিকিৎসা সেবা নিতে আসা বিভিন্ন শ্রেণীর লোকজন। অনেকেই
বলছেন, বিনামূল্যে চিকিৎসার জন্য প্রাইভেট হাসপাতালে না গিয়ে সরকারী হাসপাতালে যান কিন্তু এখানেও টাকা ছাড়া কোন চিকিৎসা হয় না। তাহলে সাধারণ মানুষ যাবে কোথায়।

এ ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আব্দুস সামাদের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন- তদন্ত পূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।