• ১৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ , ১০ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

গোয়াইনঘাটের জাফলং থেকে ভূয়া নারী ডাক্তার আটক, ডায়াগনস্টিক সেন্টার সিলগালা

sylhetsurma.com
প্রকাশিত মার্চ ১২, ২০২৪
গোয়াইনঘাটের জাফলং থেকে ভূয়া নারী ডাক্তার আটক, ডায়াগনস্টিক সেন্টার সিলগালা

গোয়াইনঘাট সীমান্ত জনপদ সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলায় জাফলং থেকে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে এক ভূয়া ডাক্তারকে আটক করা হয়েছে। আটককৃত সাদিয়া আক্তার (৪৩) ঢাকার মিরপুর শেওরাপাড়া এলাকার মুহিত খানের মেয়ে। এ ঘটনায় ঐ ভূয়া ডাক্তারের কর্মরত প্রতিষ্ঠান সোনিয়া ডায়াগনস্টিক সেন্টারকে ৫০ হাজার ও ফার্মেসীকে ৫০ হাজারসহ মোট ১ লক্ষ টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। একই সঙ্গে বিভিন্ন অনিয়ম আর অব্যবস্থাপনার কারণে সোনিয়া ডায়াগনস্টিক সেন্টারকে সিলগালা করা হয়েছে। মঙ্গলবার (১২মার্চ) দুপুর ১২টায় গোয়াইনঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সিদ্ধার্থ ভৌমিকের নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালিত হয়। এ সময় উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. কিশলয় সাহা, ডা. সাবিনা আক্তার, থানার এসআই এমরুল কবিরসহ পুলিশ সদস্যরা অভিযানে অংশ নেন। জানা যায়, ডা. সাদিয়া চৌধুরী সিম্মি নামের একজন চিকিৎসক মালেশিয়া থাকেন। তার নামের ঐ পরিচয় ব্যবহার করে ঐ ভূয়া চিকিৎসক সাদিয়া আক্তার দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন প্রতারণাসহ সোনিয়া ডায়াগনস্টিক সেন্টারে চিকিৎসা দিয়ে আসছেন। খবর পেয়ে গোয়াইনঘাট উপজেলা প্রশাসন ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চালিয়ে চিকিৎসক সাদিয়া আক্তারকে আটক করেন। একই সাথে ডাক্তার সাদিয়া আক্তারের ব্যাবসায়িক প্রতিষ্ঠান সোনিয়া ডায়াগনস্টিক সেন্টারের কোন বৈধতা না থাকায় সিলগালা ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা এবং মেয়াদ উত্তীর্ণ ঔষধ থাকার কারণে ফার্মেসীকে ৫০ হাজার করে মোট ১লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।এব্যাপারে গোয়াইনঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. কিশলয় সাহা জানান, প্যাথলজিতে মেয়াদ উত্তীর্ণ ডায়াগনস্টিক কিট, এক্স-রে রুমের গঠনতান্ত্রিক নিয়ম না মানা এবং লাইসেন্স বিহীন ফার্মেসি চালু রাখা ও আরেকজনের BMDC রেজিষ্ট্রেশন নাম্বার (যেই ডাক্তারের নাম্বার ব্যবহার করছেন উনি বিদেশে থাকেন) ব্যবহার করার জন্য ভোক্তা অধিকার আইন ২০০৯’র ধারা অনুযায়ী ১লক্ষ টাকা জরিমানা ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার টির বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। আটক ডাক্তার সাদিয়া পুলিশ হেফাজতে থানায় রয়েছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ থেকে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ দায়ের শেষে আগামীকাল কোর্টে হাজতে প্রেরণ করা হবে।