• ১৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ , ১১ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

হিজড়া যুব কল্যাণ সংস্থার এসসিজি প্রকল্পের উদ্যোগে জাতীয় আইনগত সহায়তা দিবস পালন

sylhetsurma.com
প্রকাশিত এপ্রিল ২৯, ২০২৪
হিজড়া যুব কল্যাণ সংস্থার এসসিজি প্রকল্পের উদ্যোগে জাতীয় আইনগত সহায়তা দিবস পালন

জাতীয় আইনগত সহায়তা দিবস উপলক্ষে বর্ণাঢ্য র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার (২৮ এপ্রিল) হিজড়া যুব কল্যাণ সংস্থা সিলেট এর উদ্যোগে এ র‌্যালি ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। র‌্যালিটি বেলা ২টায় সিলেট নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে শেষ হয়।  হিজড়া যুব কল্যাণ সংস্থা সিলেটের সভাপতি সুক্তার সভাপতিত্বে ও এসসিজি প্রকল্পের প্রকল্প সমন্বয়কারী মো. মোছাব্বের রহমান এর পরিচালনায় আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন ব্লাস্ট সিলেট ইউনিটের ইউনিট কো-অর্ডিনেটর এবং প্যানেল আইনজীবী সত্যজিৎ কুমার দাস, সিলেট ওম্যান্স জার্নালিস্ট ক্লাবের প্রেসিডেন্ট সাংবাদিক সুবর্ণা হামিদ, বন্ধুর ডিআইসি ম্যানেজার মো. জিয়াউল হক, আশার আলো যুব কল্যাণ সংঘের প্রকল্প সমন্বয়কারী সাজিদুল ইসলাম, কাওছার আহমদ প্রমুখ। এছাড়াও অন্যান্য হিজড়া জনগোষ্ঠীরা উপস্থিত ছিলেন।হিজড়া কমিউনিটি কেন আন্তর্জাতিক আইন সহায়তা দিবস পালন করবে:   ১। বাংলাদেশের হিজড়া জনগোষ্ঠী যুগ যুগ ধরে তাদের আইনী অধিকার আদায়, যৌণ নির্যাতন, কম মজুরী, কাজের পরিবেশ না থাকা ইত্যাদি বিষয়ে যে মহান সংগ্রাম করেছে,সে সম্পর্কে জানবে ও বর্তমানে তাদের জীবনে চলার জন্য কি কি ধরণের চ্যালেঞ্জ মোকাবালার জন্য পদক্ষেপ নিতে হবে সে সম্পর্কে হিজড়া কমিউনিটি সচেতন হবে ও তাদের অধিকার,মানবাধিকার বিষয়ে সমাজ ও সরকারের কাছে তাদের সমআধিকারের দাবী তুলে ধরতে পারবে এবং আইনী সহায়তার জন্য বিভিন্নভাবে সচেতন হবে ও নিজেরদের জন্য কাজ করতে পারবে।
২। হিজড়া কমিউনিটি সম্পর্কে সমাজে ১টা ইতিবাচক ধারণা তৈরী হবে। তাই হিজড়া কমিউনিটির অধিকারের পাশাপাশি তাদেরও অন্য সকল মানুষের মতো সম অধিকার প্রতিষ্ঠা হওয়া প্রয়োজন।
৩। হিজড়া কমিউনিটির মানুষদের সাথে সমাজের সর্বস্তরে আরও ভালভাবে পরিচয় হবে । ৪। হিজড়া কমিউনিট জানবে কোথা থেকে ও কিভাবে জাতীয় আইনী সহায়তা দিবস উদযাপন শুরু হলো, যেহেতু তারা এই সমাজেরই ১টি অংশ। তাদেরও এ বিষয়ে জানার অধিকার আছে।  ৫। সমাজে তাদের মূল সমস্যা হলো কোন কাজ, পারিবারিক সম্পত্তি, ভাল চিকিৎসা না পাওয়া অর্থাৎ তাদের মৌলিক অধিকার এর ব্যাপারে বৈশম্যের স্বীকার হতে হয়। জাতীয় আইন সহায়তা দিবসের মাধ্যমে তারা সমাজের অন্য সাধারণ মানুষের মতোই তাদের আইন সহায়তা আদায়ে কাজ করতে পারবে।   আইন সহায়তা দিবসের মধ্য দিয়ে নারীর অধিকার বাস্তবায়ন হলে হিজড়া জনগোষ্ঠীরও অধিকার আদায়ে সহায়ক হবে ও হিজড়া জনগোষ্ঠীদের মাঝে সমঅধিকার এবং সার্বিক বিষয়ে অনূপ্রেরণা সৃষ্টি হবে।  বিজ্ঞপ্তি