প্রতিপক্ষের রামদার আঘাতে নিহত ১ : আহত ১০

প্রকাশিত: 6:25 AM, May 31, 2017

জগন্নাথপুর সংবাদদাতা :
জগন্নাথপুরে  দ্ইু পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় ১ জন নিহত ও কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছেন।  ঘটনাটি ঘটেছে জগন্নাথপুর উপজেলার আশারকান্দি ইউনিয়নের ছোট শেওরা গ্রামে।  সংঘর্ষে প্রতিপক্ষের রামদার আঘাতে মাথায় আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে শেওরা গ্রামের মৃত মমশ্বর আলীর ছেলে হতভাগ্য জমশেদ আলীর (৬৫) ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয়। আহতরা হলেন, আম্বর আলী, সুজন মিয়া, ইউনুছ মিয়া, জিতু মিয়া, তেরা মিয়া, মাহমুদ আলী ও হাছান মিয়া। আহতদের মধ্যে ৫ জনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপতালে প্রেরণ করা হয়েছে। অন্য আহতদের জগন্নাথপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তিসহ প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। এ ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন সময় আবারো বড় ধরণের সংঘর্ষের আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসী।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, পার্শ্ববর্তী পাটকুরা গ্রামের জামে মসজিদ থেকে প্রতিদিন রাত ১ টার দিকে মাইক দিয়ে গজল বাজিয়ে লোকজনকে ডাকা হয়। যদিও রাত ২ টার পর থেকে ডাকার কথা। এ নিয়ে ছোট শেওরা গ্রামের প্রবীণ আলেম মাওলানা ছমির উদ্দিন পাটকুরা মসজিদের মোয়াজ্জিনকে বলেছিলেন রাত ২ টার পর থেকে যেন ডাকা হয়। এ কথাটি মোয়াজ্জিন মসজিদ কমিটির কাছে বাড়িয়ে বলায়, তারা ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। এরই জের ধরে মঙ্গলবার বিকেলে পাটকুরা গ্রামের শায়েস্তা মিয়া, টিটু মিয়া, লুৎফুর রহমান, তৌরিছ মিয়া, আকিক মিয়া, হেলাল মিয়া, বিলাল মিয়া, লিটন মিয়া ও সুলেমান মিয়াসহ একদল লোক উত্তেজিত হয়ে ছোট শেওরা গ্রামের ছাদিক মিয়া নামের এক ব্যক্তিকে মারপিট করতে থাকেন। তাকে বাঁচাতে গ্রামের অন্যান্য লোকজন এগিয়ে গেলে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়। প্রায় ঘন্টা ব্যাপী সংঘর্ষের ঘটনায় ছাদিক পক্ষের ১ জন নিহতসহ উভয় পক্ষের কমপক্ষে ১০ জন আহত হন। খবর পেয়ে জগন্নাথপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শনসহ লাশটি উদ্ধার করেছে এবং থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ