সিলেটে ঈদ জামাত থাকবে নিরাপত্তা বলয়ে

প্রকাশিত: ১১:৫০ অপরাহ্ন, জুন ২৫, ২০১৭

সিলেট সুরমা ডেস্ক : সুন্দর আর আনন্দের শাশ্বত বাণী নিয়ে দরজায় এসে দাঁড়িয়েছে পবিত্র ঈদুল ফিতর। সোমবার বাংলাদেশে পালিত হবে ঈদ। অন্যথায়, আগামী মঙ্গলবার ঈদের মাতোয়ারা হবে মানুষ। ঈদের অন্যতম অনুষঙ্গ নামাজ। ঈদের নামাজে শরিক হতে ঈদের দিন সকালে ঈদগাহ ও মসজিদে ঢল নামে ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের।
এবার সিলেট জেলা ও মহানগর মিলিয়ে ১৩০৯টি স্থানে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এসব ঈদ জামাতে থাকবে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা। সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতায় পুলিশ গড়ে তুলবে নিরাপত্তাবলয় গড়ে তুলবে। পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলে এমন আভাস পাওয়া গেছে।
পুলিশের কাছ থেকে প্রাপ্ত তথ্যানুসারে, এবার সিলেট মহানগরীর ৬টি থানা এলাকায় ২৪৪টি ঈদগাহ ও মসজিদে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া সিলেট জেলার ১২টি উপজেলার ৬৮৭টি মসজিদ ও ৩৭৮টি ঈদগাহ মিলিয়ে ১০৬৫টি স্থানে হবে ঈদের জামাত।
সিলেট মহানগরীতে ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে শাহী ঈদগাহে। ঈদের দিন সকাল ৯টায় এখানে প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে। সিলেটের ঐতিহ্যবাহী এ ঈদগাহ ময়দানে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করবে পুলিশ। নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে লাগানো হয়েছে বেশ কয়েকটি সিসি ক্যামেরা। এ ঈদগাহের প্রবেশপথ ও বেরিয়ে যাওয়ার আলাদা পথে থাকবে সশস্ত্র পুলিশ। সন্দেহভাজন যে কাউকেই করা হবে তল্লাশি। এছাড়া সাদা পোশাকে মুসল্লিদের সাথে মিশে গিয়ে নিরাপত্তায় কাজ করবেন শতাধিক পুলিশ ও গোয়েন্দা সদস্য।
একই রকম নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকছে হযরত শাহজালাল (রহ.) ও হযরত শাহপরান (রহ.) এর মাজার মসজিদে। এ দুই স্থানেও বেশ কয়েকটি সিসি ক্যামেরা লাগিয়েছে পুলিশ। নগরীর অন্যান্য স্থানে ঈদ জামাতেও থাকছে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা। পোশাকধারী পুলিশ সদস্য ছাড়াও সাদা পোশাকের পুলিশ সদস্যরা ঈদ জামাতের নিরাপত্তায় কাজ করবেন।
সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার জেদান আল মুসা  বলেন, ‘ঈদ জামাতের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পরিকল্পনা অনুসারে কাজ করবে পুলিশ। নেওয়া হবে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা। ইতিমধ্যেই নগরীর প্রধান কয়েকটি ঈদ জামাতের স্থানে সিসি ক্যামেরা লাগানো হয়েছে। অন্যগুলোতেও চলছে নজরদারি। দেড় সহ¯্রাধিক পুলিশ সদস্য নিরাপত্তা নিশ্চিতে কাজ করছেন।’
এদিকে, নিরাপত্তা স্বার্থে সিলেট মহানগরীতে বিশেষ কিছু নির্দেশনা জারি করেছে পুলিশ। ঈদের দিন ঈদগাহে বা ঈদ জামাতে জায়নামাজ ছাড়া অন্য কিছু না নিয়ে যেতে বলা হয়েছে।
এদিকে, সিলেটের ১২টি উপজেলার যে সকল স্থানে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে, সেসব স্থানেও জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। বিশেষ করে উপজেলার প্রধান প্রধান ঈদ জামাতের স্থানগুলোতে বাড়তি নজরদারি করবে পুলিশ। নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কমিউনিটি পুলিশ এবং মসজিদ ও ঈদগাহ কমিটির সাহায্যও নেওয়া হবে।
সিলেটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুজ্ঞান চাকমা বলেন, ‘সিলেটের প্রতিটি উপজেলায় ঈদ জামাতে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। উপজেলাগুলোতে প্রধান যে ঈদ জামাতগুলো হবে, সেগুলোতে বিশেষ নজরদারি থাকবে। পুলিশের পাশাপাশি কমিউনিটি পুলিশ এবং মসজিদ ও ঈদগাহকেন্দ্রীক কমিটি করে নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।’

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •