• ২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ১৪ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ , ৩রা রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি

সিলেটে বিএনপির নিজ ঘরেই ষড়যন্ত্র !

sylhetsurma.com
প্রকাশিত জানুয়ারি ৭, ২০২১
সিলেটে বিএনপির নিজ ঘরেই ষড়যন্ত্র !

সিলেট সুরমা ডেস্ক : সিলেট সিটি করপোরেশনের দুই বারের নির্বাচিত মেয়র, কেন্দ্রীয় বিএনপির সদস্য, সিলেট মহানগর বিএনপির সাবেক সভাপতি আরিফুল হক চৌধুরীকে নিয়ে সিলেট বিএনপিতে নতুন করে শুরু হয়েছে বিরোধ আর ক্ষোভ।

নিজ ঘরে দেখা দিয়েছে ষড়যন্ত্র। মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেছেন, তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ সঠিক নয়।

তিনি এটিকে নতুন করে ষড়যন্ত্রের আভাস বলে মন্তব্য করেছেন।  গোপনে প্রদান করা সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপির কয়েকজন নেতৃবৃন্দরা বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির মহাসচিব বরাবর লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে নিজ গৃহে শুরু হয়েছে দ্বন্দ্ব।

আরিফুল হক চৌধুরীকে স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তি সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন এর জন্য ঘোষিত সিলেট বিভাগীয় কমিটির আহবায়ক হওয়াকে কেন্দ্র করে নতুন করে মোড় নিয়েছে এ দ্বন্দের ।

সিলেট জেলা বিএনপি’র আহবায়ক কামরুল হুদা জায়গীরদার, সদস্য আবুল কাহের চৌধুরী শামিম, সিলেট মহানগর বিএনপির সভাপতি নাছিম হোসাইন, সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুল কাইয়ুম জালালী পংকীসহ আরো কয়েকজন নেতৃবৃন্দ মহাসচিব বরাবর লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করেন, মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী কয়েক বছর ধরে সরকার দলীয় সিলেটের মন্ত্রীদের সাথে মাখামাখি,মন্ত্রীদের মুখপাত্র,প্রিয় পাত্র থাকার জন্য তোষামোদী করেন।

১৫ আগষ্টে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে স্মরণ করেন আরিফ।  সাথে থাকেন আওয়ামীলীগের দলীয় লোকজন।

১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবসে তিনি আনুষ্ঠানিক ভাবে বঙ্গবন্ধুর ছবিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। কিন্তু শহীদ জিয়ার মাজারে তিনি ৭ই নভেম্বর কিংবা ১৬ ডিসেম্বর বা ২৬ শে মার্চ ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন এমন কোনো নজির নেই।

১০০ কেজির কেক কেটে তিনি আওয়ামীলীগের দলীয় লোকজনের সাথে শততম জন্মদিন উদযাপন করেন।

এ রকম আরো অনেক বিষয় উল্লেখ করেন নেতৃবৃন্দরা। অভিযোগের প্রেক্ষিতে আরিফুল হক চৌধুরী বরাবরই বলে আসছেন, আমি জনগণের মেয়র, মেয়র হিসেবে আমি জনগণের স্বার্থে সরকারের কাছে আবেদন নিবেদন করতে পারি। আরিফুল হক চৌধুরী একটি বেসরকারী টেলিভিশনের স্বাক্ষাতকারে বলেন, সিলেট নগরের উন্নয়ন ও জনস্বার্থে যেখানে খুশি সেখানে যাবো, এখানে আমার পরিচয় মেয়র।

এই দায়িত্বের বাইরে যেখানেই যাবো আমি বিএনপি করি, এর সাথে কোন আপোষ নেই।

যে আদর্শ বুকে লালন করি সেই আদর্শ নিয়েই মরতে চাই।

সিলেট বিএনপির এক জনৈক নেতা বলেন, সিলেট বিএনপিকে বেকায়দায় ফেলতে নিজ দলের একটি প্রতিক্রিয়াশীল চক্র সক্রিয়। অতীতে তাদের আমরা ক্ষমা করেছি, ভুলে গেছি, আবার তাদের প্রতিষ্ঠিত করেছি। তারা যে আবার নতুন করে আঘাত হানবে তা নেতাকর্মীদের চিন্তার বাইরে ছিল। ষড়যন্ত্র রুখতে সবাইকে সতর্ক থাকারও আহ্বান জানান তিনি।