জঙ্গিরা সারাদেশে একযোগে হামলার পরিকল্পনা করছে

প্রকাশিত: ৬:২০ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ৪, ২০১৭

সিলেট সুরমা ডেস্ক : নবীগঞ্জে জনপ্রতিনিধিদের সাথে ‘জঙ্গিবাদ ও আইনশৃঙ্খলা’ বিষয়ক মতবিনিময় সভায় হবিগঞ্জের পুলিশ সুপার জয়দেব কুমার ভদ্র বলেন, নবীগঞ্জের কোন এলাকায় যাতে জঙ্গিরা আস্তানা গড়তে না পারে সে জন্য বাসার মালিক ও পার্শ্ববর্তী এলাকার লোকদেরকে ভাড়াটিয়ার যাবতীয় তথ্যাদি সম্পর্কে অবগত থাকতে হবে। যদি কোন ভাড়াটিয়াদের চলাফেরায় কারো কোন ধরণের সন্দেহ হয় তাহলে সাথে সাথে বিষয়টি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে অবগত করতে হবে।
মঙ্গলবার (৪ এপ্রিল) সকালে নবীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জের আয়োজনে উপজেলা পরিষদের হলরুমে ‘জঙ্গিবাদ ও আইন শৃঙ্খলা’ বিষয়ক মতবিনিময় সভায় হবিগঞ্জের পুলিশ সুপার জয়দেব কুমার ভদ্র এ কথাগুলো বলেন।
পুলিশ সুপার আরো বলেন, এলাকার কোন লোক যদি নিখোঁজ হয় বিষয়টি পুলিশকে অবগত করবেন। যারা জঙ্গি সম্পৃক্ততার সাথে জড়িয়ে গেছে তাদের খোঁজ বের করে ধরতে হবে এবং নতুন করে যাতে আর কেউ জঙ্গিবাদের জড়াতে না পারে সে ব্যাপারেও সবাইকে সচেতন থাকতে হবে। নব্য জঙ্গিদের এখনই ধরতে হবে যাতে পরবর্তীতে দেশের কোন জায়গায় হামলা বা হামলার পরিকল্পনা করতে পারে না।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাজিনা সারোয়ার এর সভাপতিত্বে ও সহকারী পুলিশ সুপার (সার্কেল) রাসেলুর রহমানের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন, হবিগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ডা. মুশফিক হোসন, নবীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট আলমগীর চৌধুরী, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাজমা বেগম, থানার অফিসার ইনচার্জ এস.এম আতাউর রহমান, পৌরসভার মেয়র ছাবির আহমেদ চৌধুরী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল জাহান চৌধুরী।
অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, জেলা পরিষদের সদস্য এডভোকেট সুলতান মাহমুদ, আব্দুল মতিন আছাব, পৌরসভার প্যানেল মেয়র এটিএম সালাম, ইউপি চেয়ারম্যান ইজাজুর রহমান, জাবেদ আলী, সত্যজিৎ দাশ, আশিক মিয়া, বজলুর রশিদ, আবু সাইদ এওলা, মুহিবুর রহমান হারুন, আলী আহমেদ মুসা, ছাইম উদ্দিন, জাবেদুল আলম চৌধুরী সাজু, আবু সিদ্দিক, নজরুল ইসলাম, পৌর কাউন্সিলর বাবুল চন্দ্র দাশ, আলা উদ্দিন, আব্দুস ছালাম, সুন্দর আলী, প্রাণেশ দেব, জাকির হোসেন, জায়েদ চৌধুরী, কবির মিয়া, নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক মতিউর রহমান মুন্না প্রমুখ।
এছাড়াও প্রতি ইউনিয়নের সাধারণ ওয়ার্ডের সদস্য ও সংরক্ষিত আসনের নারী সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
মতবিনিময় সভায় পুলিশ সুপার জয়দেব কুমার ভদ্র আরো বলেন, জঙ্গিরা ২০০৫ সালের মতো সারা দেশে একযোগে হামলা চালানোর পরিকল্পনা করছে। তারা বিভিন্ন কৌশলে ধীরে ধীরে প্রতি এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে নেটওয়ার্ক তৈরি করার চেষ্টা করছে। বাংলাদেশে যারা জঙ্গি তৎপরতা চালাচ্ছে তারা দেশের লোকাল জঙ্গি। তারা আইএস বা আন্তর্জাতিক কোন জঙ্গি নয়। তবে বাংলাদেশে হামলার পরিকল্পনা এটা আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র। এর সাথে জড়িত দেশের অনেক মীর জাফর। বাংলাদেশে মীর জাফরের অভাব নেই। যারা ক্ষমতার বাহিরে তারা সরকারের পতন চায় তারা দেশের উন্নয়ন চায় না।
জঙ্গিদের চেনার জন্য পুলিশ সুপার কিছু তথ্য দেন। যেমন- বাসা ভাড়া নিয়ে সাথে খুব কম আসবাবপত্র থাকে, তাদের বাসায় টিভি থাকে না কারণ জঙ্গিরা বলে টিভি দেখা হারাম, জঙ্গিরা কারো সাথে মিশে না, কারো বাসায় তারা যায় না, কাউকে তাদের বাসায় আনে না, এলাকার কারো সাথে তাদের কোন যোগাযোগ নেই, কোন সামাজিক অনুষ্ঠানে তাদের উপস্থিতি নেই, জঙ্গিরা তাদের বাচ্চাদের বাসার বাহিরে যেতে দেয় না, খেলাধুলা বা অন্যান্য বাচ্চাদের সাথে মিশতে দেয় না, জঙ্গিদের বাসার দরজা, জানালা সব সময় বন্ধ থাকে এবং পর্দা লাগানো থাকে, তাদের বাসায় কোন কাজের লোক থাকে না, মাস শেষ হওয়ার আগেই বাসা ভাড়া দিয়ে দেয়, যাতে মালিক তাদের বাসার ভিতরে যেতে না পারে। তাই সবাইকে এ ব্যাপারে সচেতন থাকতে হবে। যদি কোন লোকের চলাফেরায় সন্দেহ হয় তাহলে বিষয়টি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে জানানোর জন্য অনুরোধ করেন পুলিশ সুপার।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ